তাড়াশে স্কুল শিক্ষককের অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে: অপসারণ দাবী এলাকাবাসীর

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:
সিরাজগঞ্জের তাড়াশ সদর ইউনিয়নের রঘুনিলী মঙ্গলবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক (গণিত) আইযুব আলী (৩৫) বিরুদ্ধে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ উঠেছে। আইযুব আলী উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের শাকুয়াদিঘী গ্রামের ইউসুব আলীর ছেলে। অভিযুক্ত শিক্ষকের বিচার ও অপসারণ দাবী করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর ১’শ চার জনের স্বাক্ষরিত লিখিত অভিযোগ পত্র দাখিল করেছেন অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সহকারি শিক্ষক আইযুব আলী দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন ছাত্রীর সাথে নানা ভাবে অসামাজিক কার্যকলাপ করে আসছে। গত ১৬ মার্চ সোমবার বেলা ২টায় অভিযুক্ত সহকারি শিক্ষক আইযুব আলী রঘুনিলী মঙ্গলবাড়িয়া বাজারে ভাড়া করা একটি কক্ষে প্রাইভেট পড়ানোর নামে ওই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীর সাথে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকা অবস্থায় এলাকাবাসী ধরে ফেলে। এমসয় শিক্ষক আইযুব আলী কৌশলে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে অভিভাবক ও এলাকাবাসী ক্ষীপ্ত হয়ে ওই শিক্ষিকের বিরুদ্ধে অসামাজিক কার্যকলাপের বিচার ও অপসারণ দাবীতে মানবন্ধন ও পোষ্টারিং করেন।
নুরুল ইসলাম, মোস্তফা মন্টু, আব্দুর রাজ্জাক, গোলজার হোসেনসহ একাধিক অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, ওই শিক্ষিকের বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের ছেলে মেয়েদের স্কুলে পাঠাবো না।
ঘটনাটি অস্বীকার করে অভিযুক্ত শিক্ষক আইযুব আলী বলেন, এটা মিথ্যা ও সাজানো ঘটনা।
রঘুনিলী মঙ্গলবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিক রবিউজ্জামান নান্নু বলেন, অভিযোগটি আমিও পেয়েছি। ওই শিক্ষক ইতিপূর্বেও স্কুলে একাধিকবার এধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। তাকে সর্তক করার জন্য বেশ কয়েকবার কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হয়েছিল।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফ্ফাত জাহান বলেন, অভিযোগপত্রটি পেয়েছি, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Share via
Copy link