সিরাজগঞ্জে ৬ দফা দাবীতে বিড়ি শ্রমিকদের সমাবেশ অনুষ্ঠিত

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি :
সিরাজগঞ্জ শহরের বাজার স্টেশন এলাকার স্বাধীনতা স্কয়ারের মুক্তমঞ্চে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ৬দফা দাবীতে সিরাজগঞ্জের বিড়ি শ্রমিকরা এক বিশাল সমাবেশ করেছে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন,বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি এমকে বাঙ্গালী। বিশেষ অতিথি ছিলেন,বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি আমিন উদ্দিন। সিরাজগঞ্জ বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান,সাংগঠনিক সম্পাদক হারিক হোসেন,সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাসনাত লাবলু,প্রচার সম্পাদক শামীম ইসলাম,সদম্য নাজিম উদ্দিন,সিরাজগঞ্জ বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আকবর হোসেন,ইকবাল হোসেন প্রমুখ। বক্তারা বলেন,২০২০-২০২১ অর্থ বছরের জাতীয় বাজেটেধার্যকৃত অতিরিক্ত ৪টাকাপ্যাকেট মূল্যকর সম্পূর্ণ প্রত্যাহার করতে হবে।বিড়ি শ্রমিকদেও সপ্তাহে ৬দিন কাজের ব্যবস্থা করতে হবে।বিড়ির উপর অর্পিত ১০% অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহার করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর চালুকৃতবিড়িকেকুটির শিল্প হিসাবেরাখতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আমলে বিড়িতে ট্যাক্স ছিলনা,আমাদের নেত্রী মামনীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়েও আশাকরি ট্যাক্স রাখবেন না। সকল নকল বিড়ির ব্যবসা ও অনলাইনে বিড়ি তৈরীরলাইসেন্স বন্ধ করতে হবে। বক্তারা আলো বলেন,বিড়ি তৈরীর সাথে হাজার হাজার হত দরিদ্র বিধাব স্বামী পরিত্যাক্ত নারী জড়িত। বিড়ি তৈরী বন্ধ হয়ে গেলে এদেও জীবন জীবিকাও বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে তাদেও পরিবারকে পথে বসে যেতে হবে। তাই এ শিল্পকে বাচাতে ৬ দফা বাস্তবায়ন অত্যন্ত জরুরী। বক্তারা আরো বলেন,প্রতি প্যাকেট বিড়িতে মূল্যস্তর ৪টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। অথচ নিস্তরের প্রতি প্যাকেট সিগারেটের মূল্যস্তর মাত্র ২টাকা ও মধ্যম স্তরের সিগারেটের কোন মূল্য বৃদ্ধি করা হয়নি। এটা অত্যন্ত বৈষম্যমূলক ও জাতির কাছে প্রশ্নবিদ্ধ।এতে আমরা অত্যন্ত মর্মাহত। তাই এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

 

Share via
Copy link